Friday , August 12 2022

বাংলাদেশের সেরা 10 অভিনেত্রী

টেলিভিশন আমাদের প্রতিদিনের বিনোদনের একটি মাধ্যম। আমরা, বাংলাদেশিরা টেলিভিশনের প্রতি খুবই আসক্ত। টেলিভিশনে প্রচারিত নাটকগুলো আমাদের সবচেয়ে বেশি পছন্দ। আর নাটকে কাজ করা অভিনেত্রীরা সবসময়ই দর্শকদের কেন্দ্রবিন্দুতে থাকেন। শ্রোতারা সবসময় তাদের সম্পর্কে আরও বেশি করে জানতে চায়। কারণ তারা সর্বদা তাদের কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে দর্শকদের হৃদয়ে স্থান বজায় রাখে। এই আর্টিকেলে আমরা বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের সেরা ১০ টিভি অভিনেত্রীর সংক্ষিপ্ত তালিকা সম্পর্কে কথা বলব।

  • 01.  মেহজাবিন 2009 সালে “লাক্স সুপারস্টার” খেতাব জিতেছিলেন।  তিনি বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত মডেল। তিনি বাংলালিংকের একটি বিজ্ঞাপনে প্রথমবার মিডিয়ায় কাজ করেছেন। পরে তিনি লাক্স, 7 আপ, পেপসি, পন্ডস, ম্যাগি, আড়ং ইত্যাদি অনেক বিখ্যাত ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন। মেহজাবিন বেশ কিছু নাটকে নিয়মিত কাজ করেন। ইফতেখার আহমেদ ফাহমি পরিচালিত তার প্রথম টেলিভিশন নাটক “তোমায় ঠাকো সিন্ধু পাড়ে”। তিনি অনেক জনপ্রিয় নাটকে কাজ করেছেন যেমন “ওপেকখার ফটোগ্রাফি”, “প্রিয়তোমেশু”, “মনের মটো মন”, “ব্লাইন্ড ডেট”, “ইউনিভার্সিটি”, “ওয়ান ওয়ে রোড”, “অপ্রত্যাশিত ভালোবাসা”, “বোরো ছেলে”, “সেরা” বন্ধু ”,“ বুকের বা পাশ ”ইত্যাদি। মেহজাবিন 10 বছরেরও বেশি সময় ধরে দর্শকদের শীর্ষ প্রিয় অভিনেত্রী।

  • 02.  তিশা বাংলাদেশের একজন বিখ্যাত অভিনেত্রী। তিনিও একজন জনপ্রিয় মডেল। তিশা “থার্ড পারসন সিঙ্গুলার নাম্বার”, “টেলিভিশন”, “ফাগুন হাওয়ে”, “রানওয়ে”, “অস্টিটো”, “হালদা” ইত্যাদি অনেক সিনেমায় কাজ করেছেন। তিশার প্রথম নাটক ছিল আহসান হাবিবের “সাত প্রোহোরার কাব্বো”। পরে, তিনি অনেক কল্পিত নাটকে কাজ করেছেন। উল্লেখযোগ্য কিছু নাম হল “সুলতানা বিবিয়ানা”, “ব্রাজেন্টিনা”, “প্রজোটনে ভালোবাসা”, “অ্যাংরি বার্ড”, “মনসুবা জংশন”, “ফিনিক্স” ইত্যাদি। তিশা অনেকবার সৎভাবে কাজ করার জন্য “সেরা অভিনেত্রী পুরস্কার” জিতেছেন। তিশা কোকা কোলা, সিটি সেল, প্যারাসুট, বোম্বে সুইটস, কেয়া কসমেটিকস, রবি, রূপচাঁদা ইত্যাদি অসংখ্য জনপ্রিয় টিভিসিতেও কাজ করেছেন।

  • 03.  মিম বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় মডেল এবং অভিনেত্রী। 2007 সালে তিনি “লাক্স সুপারস্টার” এর মুকুট অর্জন করেন। তারপর তিনি গ্ল্যামারের জগতে প্রবেশ করেন। তিনি হুমায়ূন আহমেদের চলচ্চিত্র “আমার আছে জল” এ অভিনয় করে আরো জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। তার চলচ্চিত্র “গ্লো অফ দ্য ফায়ারফ্লাই” তাকে অনেক আন্তর্জাতিক পুরস্কার জিততে সাহায্য করেছিল। মিম লাক্স, ওয়ালটন, গ্রামীণফোন, ট্রেসেমে ইত্যাদি অনেক বিখ্যাত ব্র্যান্ডের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছেন। মিম অনেক ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার কিছু জনপ্রিয় চলচ্চিত্র হল “আমার আছে জল”, “জোনাকির আলো”, “আমার প্রাণের প্রিয়া”, “তারকাটা” ইত্যাদি। । বর্তমানে, তিনি কলকাতা এবং ঢাকাই সিনেমা উভয় ক্ষেত্রেই কাজ করেন। মিমের স্বপ্ন নাটক হল “যোধা আকবর”, “যাত্রা চাই না”, “শেষের গল্প”, “প্রেমের বিকৃতি”, “ভালোবাসা তাই”, “কিক অফ”, “, “রাতের রাত” ইত্যাদি।

04.  শবনম ফারিয়া প্রথমে মানুষের কাছে পরিচিত ছিলেন যখন তিনি প্রাণ চানাচুরের একটি টিভিসিতে হাজির হয়েছিলেন। তিনি রবি, প্রাণ জুস, রাধুনি, প্যারাশুট ইত্যাদির টিভিসিতেও উপস্থিত হয়েছেন পরে তিনি নাটকেও অভিনয় করে দর্শকদের হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। তার প্রথম নাটক ছিল “অল টাইম দূরের উপোর”। তার আরো কিছু জনপ্রিয় নাটক হল “বানর বিজনেস”, “ফান্ডে পোরিয়া বগা কান্দে”, “ব্যাকবেঞ্চার”, “হানিমুন প্যাকেজ”, “শুভর্নো তিথি” ইত্যাদি। শবনম ফারিয়া 2018 সালে অনম বিশ্বাসের জনপ্রিয় ছবি “দেবি” তে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছেন। সিনেমাটি মুক্তির পর তিনি অনেক প্রশংসিত হন।

  • 05. সাবিলা নূর সবচেয়ে জনপ্রিয় টেলিকম কোম্পানি “গ্রামীণফোন” এর একটি টিভিসিতে কাজ করার পর সাবিলা নূর আলোচনায় আসেন। তিনি নেসকাফে, সিঙ্গার কর্পোরেশন, মাছরাঙ্গা টেলিভিশন, ইগলু আইসক্রিম, এশিয়ান টাউন, ওপ্পো মোবাইল কোম্পানি, রবি টেলিকম কোম্পানি ইত্যাদির আরও অনেক টিভিসিতে কাজ করেছেন। “বানর ব্যবসা” নামে একটি টেলিফিল্মে কাজ করে তিনি আরও জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। তার আরেকটি জনপ্রিয় নাটক হল “কিশোর”, “ছবি দানার প্রজাপতি”, “এমএমএস”, “জোনাকির আলো”, “হ্যাপি এন্ডিং” ইত্যাদি।

06.  মোমো 2006 সালে “লাক্স সুপারস্টার” হয়েছিলেন এবং অনেকের মন জয় করেছিলেন। পুরস্কার হিসেবে তিনি হুমায়ূন আহমেদের “দারুচিনি দ্বীপে” কাজ করার সুযোগ পান, যেখানে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলেন। তিনি “আলতাবানু”, “দহন”, “স্বপ্নের ঘর” এবং “ছুয়ে দিল সোম” নামে আরও চারটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। মোমো বেশ কিছু নাটক, টেলিফিল্ম এবং স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। তার উল্লেখযোগ্য কিছু নাটক হল “নীলপোরি নীলাঞ্জনা”, “মেয়েটি কথা বলিবে, প্রেম কোরিবেনা”, “গ্রহন”, “জলসাঘর” ইত্যাদি।

07.  তানজিন তিশা একজন অভিনেত্রী এবং মডেল হিসেবে পরিচিত। কিন্তু তিনি উপস্থাপক হিসেবেও কাজ করেন। মানুষ প্রথমে তিশাকে চিনত যখন সে একটি বিখ্যাত টেলিকম কোম্পানি “রবি” এর একটি টিভিসিতে কাজ করত। তার আরেকটি মোড় ছিল বাংলাদেশের জনপ্রিয় গায়ক ইমরান মাহমুদুলের একটি ইউটিউব মিউজিক ভিডিওতে কাজ করা, যার নাম “বলতে বলতে চোলতে চোলতে”। তিনি অল্প সময়ের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। তার জনপ্রিয় কিছু নাটক হল “ইউ-টার্ন”, “এক্স গার্লফ্রেন্ড”, “ব্রেক আপ”, “দ্য এন্ড” ইত্যাদি।

08. মিথিলাএকজন অভিনেত্রী, মডেল এবং একজন উন্নয়ন কর্মী হিসেবে কাজ করেন। তিনি গান গেয়েছেন এবং সময়ে সময়ে গান লিখেছেন। তিনি শৈশবে নিজেকে বিভিন্ন নৃত্যে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। ছোটবেলায় তিনি থিয়েটার শিল্পী হিসেবে কাজ করতেন। মিথিলা প্রকৃত অর্থে একজন অলরাউন্ডার। মিথিলা জুই নারকেল তেল, রবি, বাংলালিংক, মেরিল বেবি প্রোডাক্টস, ক্লোজ আপ টুথপেস্ট, হুয়াওয়ে ইত্যাদি অনেক জনপ্রিয় ব্র্যান্ডের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করেছেন। মিথিলা অনেক জনপ্রিয় নাটকে কাজ করেছেন যেমন “হাউস ফুল”, “পাঞ্চ ক্লিপ”, “আমার গোলপে তোমি” ইত্যাদি। তিনি “ডেনমোহর”, “কোথোপোকথন”, “এক্স ফ্যাক্টর” ইত্যাদি অনেক জনপ্রিয় টেলিফিল্মেও অভিনয় করেছেন। তিনি বাংলাভিশনে প্রচারিত “আমার অমি” নামে বাংলাদেশের একটি জনপ্রিয় সেলিব্রিটি টক শো -এর হোস্ট।

  • 09.  সাফা কবির এয়ারটেলের একটি টিভিসিতে কাজ করে মিডিয়ায় প্রবেশ করেন। তিনি একজন অভিনেত্রী এবং মডেল। তিনি অনেক টিভিসিতে কাজ করেছেন যেমন প্যারাসুট নারকেল তেল, ফেয়ার অ্যান্ড লাভলি, মিস্টার নুডলস, সানসিল্ক, রবি, প্রাণ পিনাট বার ইত্যাদি। তার প্রথম টেলিফিল্ম ছিল “@18 অলটাইম দূরের উপোর”। তার আরো কিছু জনপ্রিয় নাটকের নাম হল “আতপোর আমরা”, “এ গোলপার নাম নেই”, “মিস ম্যাচ”, “ভালোবাশা 101” ইত্যাদি। তিনি 5 টি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। এবং তিনি কিছু মিউজিক ভিডিওতেও হাজির হয়েছেন।

  • 10.  তাসনিয়া ফারিন একজন অতি অল্পবয়সী অভিনেত্রী, যিনি 2018 সালে মিডিয়াতে যোগ দেন। কাজল আরেফিন ওমি পরিচালিত “ব্যাচেলর ট্রিপ” নাটকে কাজ করার পর তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। তাসমানিয়ার আরো জনপ্রিয়তা অর্জন করা কিছু নাটকের মধ্যে রয়েছে “মিউচুয়াল ব্রেক আপ”, “লাভ এক্সপ্রেস”, “ফেয়ার ইন লাভ”, “আমি গাধা বলচি”, “ক্লাসমেট” ইত্যাদি। তাসনিয়া ফারিন কিছু স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র এবং মিউজিক ভিডিওতেও কাজ করেছেন ।

আশা করি আপনারা “বাংলাদেশের শীর্ষ 10 টিভি অভিনেত্রী” সম্পর্কে এই নিবন্ধটি পছন্দ করবেন। তারা সক্রিয়, তাদের পেশার প্রতি আন্তরিক এবং সারা বিশ্বে তাদেরকে দেখাতে খুব আগ্রহী। তাদের প্রচেষ্টা বাংলাদেশ টিভি সংস্কৃতির জন্য একটি নতুন ইতিহাস সৃষ্টি করছে।  

About admin

Check Also

10 টি সেরা মুভি ডাউনলোড করার ওয়েবসাইট Top Ten Movie Downloads Site 2022

10 টি সেরা মুভি ডাউনলোড করার ওয়েবসাইট | Top Ten Movie Downloads Site 2022

মুভি ডাউনলোড করার ওয়েবসাইট খুঁজছেন? মোবাইলে মুভি ডাউনলোড সাইট যদি খুঁজে থাকেন তাহলে এই পোস্টটি …

Leave a Reply

Your email address will not be published.